পরিবারের দাবি ষড়যন্ত্রের শিকার রুবেল-বরকত

আলোচিত খবর

ফরিদপুর টাইমস:

বিভিন্ন ইস্যুতে সম্প্রতি গণমাধ্যমের শিরোনাম হওয়া ফরিদপুরের আলোচিত দুই ভাই ইমতিয়াজ হাসান রুবেল ও সাজ্জাদ হোসেন বরকত ষড়যন্ত্রের শিকার বলে দাবি করেছে তাদের পরিবার। পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, রুবেল-বরকতের নামে দুই হাজার কোটি টাকার মানি লণ্ডারিং মামলা সম্পূর্ণভিত্তিহীন ও ষড়যন্ত্রমূলক। এখন পর্যন্ত দায়ের করা ভিন্ন মামলায় রিমান্ডে এনে জোরপূর্বক ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি আদায় করা হয়েছে। এমন কি বাচ্চু রাজাকার নামে তাদের কোনো আত্মীয়ও নেই।

শনিবার রাজধানীর ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্র্যাব) অডিটোরিয়ামে পরিবারের পক্ষ থেকে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব দাবি করা হয়।

এ সময় পরিবারের পক্ষে সংবাদ সম্মেলনে অংশ নেন ইমতিয়াজ হাসান রুবেলের মেয়ে যাওয়াতা আফনান রাদিয়া। সংবাদ সম্মেলনে দাবি করা হয়, রাজনৈতিক প্রতিহিংসা এবং ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে তার আব্বু ও কাকার বিরুদ্ধে ধারাবাহিকভাবে একের পর এক আঘাত করা হচ্ছে। সেটা যদি না হতো তদন্তকারী সংস্থাগুলোর বক্তব্যে এমন বৈপরীত্য কেন? অপ্রদর্শিত আয়ের একই মামলা সিআইডি করলো দুই হাজার কোটি টাকার আর দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) করলো ৭২ কোটি টাকার। জোর করে নির্যাতনের মুখে রুবেল-বরকতের ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি নেয়া হয়েছে বলে সংবাদ সম্মেলন থেকে দাবি করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে সংবাদ সম্মেলনে রাদিয়া বলেন, ‘আমার আব্বু এবং কাকার লাইসেন্স করা চারটি আগ্নেয়াস্ত্র রয়েছে। এরপরও তারা কেন অবৈধ অস্ত্র রাখবেন? ৭ জুন গ্রেফতারের আগে তাদের নামে কোনো মামলাও ছিল না। আব্বু ও কাকাকে মোট ২৭ দিন রিমান্ডে নিয়ে অমানুষিক নির্যাতন করা হয়। নির্যাতন সইতে না পেরে কাকা কোর্টে নিজের শরীরে নিজে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা চালান।’
গ্রেফতার নিয়েও ছিল অনেক লুকোচুরি এমন দাবি করে রাদিয়া বলেন, গত বছর জুনে যখন সারা দেশে করোনা মহামারী সর্বোচ্চ পর্যায়, তখন ৭ তারিখ আব্বু ও কাকাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারের পর ফরিদপুর জেলা পুলিশ সুপার সংবাদ সম্মেলনে জানালেন, বদরপুর থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে। গত বছর জুনের ৯ তারিখের সকল পত্রিকায় তা প্রকাশও করা হয়। কিন্তু অস্ত্র মামলার এজাহারে বলা হচ্ছে, তাদের বাইপাস এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে! তাহলে তাদের গ্রেফতার করা হলো কোথা থেকে? রাদিয়া তার বাবা ও চাচাকে গ্রেফতার থেকে শুরু করে এখন পর্যন্ত চলা প্রতিটি ঘটনাকে ষড়যন্ত্রের অংশ বলে দাবি করেন।

রাদিয়া তার পরিবারের রাজনৈতিক আদর্শের কথা তুলে ধরে বলেন, ‘আমার বাবা সরাসরি রাজনীতির সাথে জড়িত নন। চাচা (বরকত) ফরিদপুর শহর আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক। এখন বলার চেষ্টা করা হচ্ছে আব্বু ও কাকা আওয়ামী লীগের হাইব্রিড নেতা। আমার দাদা মরহুম আব্দুস ছালাম মন্ডল ফরিদপুর পৌরসভার এক নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতিও ছিলেন।’

তিনি আরো বলেন, ‘বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলে আমার দাদার বিরুদ্ধে উদ্দেশ্যমূক রাজনৈতিক মামলা করা হয়। ওই মামলায় তাকে তিন মাস কারাবাসও করতে হয়েছে।’

সংবাদ সম্মেলনে পরিবারের নিরাপত্তা চেয়ে এ সময় গণমাধ্যমে প্রচার হওয়া রুবেল-বরকতের পাঁচ হাজার ৭০৬ বিঘা জমির যে প্রতিবেদন প্রচার হয়েছে তা অসত্য এবং রুবেল ও বরকতের সম্পদ আয়ের বিবরণ উপস্থাপন করেন রাদিয়া। এ সময় রুবেল ও বরকতের সকল সম্পদই বৈধ বলে দাবি করে তার পরিবার।
সূত্রঃ নয়াদিগন্ত অনলাইন।

Related Posts

খবর

মেগচামী ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত

এনামুল খন্দকারঃমধুখালী উপজেলার মেগচামী ইউনিয়নের সেচ্ছাসেবক লীগের ত্রি- বার্ষিক সম্মেলন গতকাল শুক্রবার দুপুর ৩ টায় মেগচামী ইউনিয়নের বিল আড়ালিয়া বাজারে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক

খবর

মধুখালিতে জাহাঙ্গীর হত্যা মামলার আসামীদের গ্রেফতার দাবিতে মানবববন্ধন

নিজস্ব সংবাদদাতা, ফরিদপুর টাইমস:

ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলার কামালদিয়া ইউনিয়নের মাকড়াইল গ্রামে ব্যবসায়ী হোসেন মিয়া হত্যা মামলার আসামিদের গ্রেপ্তার দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছেন গ্রামবাসী।বৃহস্পতিবার (১৭

খবর

স্ত্রীর সামনেই হত্যা হলো স্বামী, পুত্রকে নিয়ে গুম করলো লাশ!

নিজস্ব সংবাদদাতা, ফরিদপুর টাইমসঃ

ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার চরকান্দা গ্রামে এক ব্যক্তিকে হত্যার অভিযোগে হত্যা মামলার বাদি ওই নিহত ব্যক্তির স্ত্রী ও পুত্রসহ চারজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

খবর

শপথ নিলেন নগরকান্দা পৌরসভার মেয়র নিমাই সরকার

নিজস্ব সংবাদদাতা, ফরিদপুর টাইমসঃ

মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হয়ে দীর্ঘদিন চিকিৎসার পর কিছুটা সুস্থ হয়ে নগরকান্দা পৌরসভার মেয়র হিসেবে শপথ গ্রহণ করেছেন নিমাই চন্দ্র