আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জোরপূর্বক বিরোধীয় সম্পত্তি দখল

ফরিদপুর: আদালতের নির্দেশ অমান্য করে এভাবেই বাঁশের বেড়া দিয়ে ঘিরে দখলে নেয়া হয়েছে বিরোধীয় সম্পত্তি। ছবি- ফরিদপুর টাইমস।

নিজস্ব সংবাদদাতা, ফরিদপুর টাইমস:

ফরিদপুরের সদর উপজেলার চরমাধবদিয়া ইউনিয়নের তালতলা গ্রামে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে চারদিকে বাঁশের বেড়া দিয়ে ঘিরে জোরপূর্বক একটি বিবাদমান সম্পত্তি দখল করে নেয়া হয়েছে। আজ সোমবার এ ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনার পর পুলিশকে জানিয়েও প্রতিকার পাওয়া যায়নি বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, ১৪২ নং দক্ষিণ চরমাধবদিয়া মৌজার ৫১৮২ নং দাগের ২৩ শতাংশ জমির মধ্যে সাড়ে ১১শতাংশ জমি নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে বিরোধ চলছে। সম্প্রতি ওই সম্পত্তির দাবিদার মো. আতাউল হক চুন্নু খাঁ ফরিদপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেটের আদালতে নালিশী সম্পত্তি নিয়ে একটি মোকদ্দমা করলে আদালত ওই সম্পত্তিতে কোন প্রকার স্থাপনা নির্মাণ, আকার আকৃতি পরিবর্তন না করা ও মামলা নিস্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত উভয় পক্ষের মধ্যে স্থিতিবস্থা বজায় রাখার জন্য কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে বলার আদেশ দেন।

আজ সোমবার বিকেলে সরেজমিনে দেখা গেছে, মো. লুৎফর রহমান নান্নু খাঁ সকাল হতে কয়েকজন শ্রমিক দিয়ে নালিশী সম্পত্তির চারদিকে বাঁশের বেড়া দিয়ে ঘিরে দখলে নিয়েছেন। সেখানে তিনি একটি টিনের ছাপড়াও বসিয়েছেন।

নান্নু খাঁ দাবি করেন, ওই সম্পত্তির কিছুটা তাঁর পৈত্রিক আর কিছু তিনি শরিকের নিকট হতে কিনেছেন। বিএস রেকর্ড ও খাজনা দাখিলাও রয়েছে তাঁর নামে। জোর করে তিনি কারো সম্পত্তি দখল করেননি। আদালতের নিষেধাজ্ঞার ব্যাপারে তিনি জানেন না বলে দাবি করেন।

অপর পক্ষ চুন্নু খাঁ বলেন, ওই সম্পত্তি জোর করে দখলে নিয়ে গাছপালা কেটে নেয়ার হুমকি দিলে তিনি লুৎফর রহমানের বিরুদ্ধে আদালতে একটি মামলা করেন। ওই মামলায় গত ২১ নভেম্বর আদালত স্থিতাবস্থা জারি করেন। তিনি বলেন, প্রতিপক্ষ এর আগে তাঁর এক ভাইকেও এঘটনা কেন্দ্র করে রক্তাক্ত জখম করে। কিন্তু পুলিশের কোন সহায়তা পাচ্ছেন না।

এব্যাপারে কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোরশেদ আলম বলেন, ওই সম্পত্তি নিয়ে দু’পক্ষের বিবাদের বিষয়টি তার নজরে আছে। তবে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বাঁশের বেড়া দিয়ে দিয়ে জমি দখলের কোন অভিযোগ তিনি জানেননা। ক্ষুব্ধ পক্ষ অভিযোগ জানালে তিনি ব্যবস্থা নিবেন।