ফরিদপুরে জেলা যুবদলের সভাপতি সেক্রেটারীসহ আটক ৯

নিজস্ব সংবাদদাতা, ফরিদপুর টাইমস:

ফরিদপুরে যুবদলের কেন্দ্র ঘোষিত বিক্ষোভ কর্মসূচী পালনের সময় বিক্ষোভ কর্মসূচী পালন শেষে জেলা যুবদলের সভাপতি রাজিব হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গির হোসেনসহ নয়জনকে আটক করেছে পুলিশ। আজ মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে শহরের মুজিব সড়কে জেলা কারাগারের সামনে হতে তাদের আটক করে ডিবি ও থানা পুলিশ। সন্ধায় তাদেরকে আসন্ন ফরিদপুর পৌরসভা নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্রের অভিযোগে জননিরাপত্তা আইনে দায়ের করা মামলার আসামী হিসেবে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়।

আটককৃত অন্যরা হলেন, জেলা যুবদলের সম্পাদক ইব্রাহিম মাহমুদ ইকু, সহ-সম্পাদক রাজিব মোল্যা, আলী আহমেদ, ওমর ফারুক, মো. ফয়সাল সরদার, জাকির হোসেন ও ছাত্রদল নেতা মাইদুল ইসলাম স্মরণ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ঢাকা ও সিরাজগঞ্জে ভোট কারচুপির প্রতিবাদে যুবদলের ঘোষিত কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে শহরের কোট চত্বর হতে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয় জেলা যুবদলের উদ্যোগে। মিছিলটি মুজিব সড়কে প্রদক্ষিণ করে জেলা কারাগারের সামনে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে। সমাবেশ শেষ হওয়ার পরপরই তাদের আটক করা হয়।

এব্যাপারে কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোরশেদ আলম বলেন, আসন্ন পৌরসভা নির্বাচন বানচালের উদ্দেশে বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা রাজপথে নেমে যানবাহন ভাংচুর ও আতঙ্ক সৃষ্টির পায়তারা চালাচ্ছিল। পুলিশ তাদের বারবার অনুরোধ করা সত্বেও তারা নিবৃত্ত হয়নি। একারণে জননিরাপত্তা আইনে তাদের আটক করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এদিকে, বিকেলে আটক যুবদল ও ছাত্রদল নেতৃবৃন্দকে দেখতে মহিলা দলের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ন সম্পাদক নায়াব ইউসুফ কোতয়ালি থানায় যান। তিনি আটককৃতদের মুক্তি ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান।

এছাড়া জেলা বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ আটককৃতদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমুলক মামলা দায়েরের অভিযোগ করেন। তারা মামলা প্রত্যাহার ও তাদের মুক্তি দাবি করেন।