September 25, 2020

বেতনের টাকায় শতাধিক মজুরের সেহরি খাওয়াচ্ছে পুলিশ

দিনমজুরদের সেহরি খাওয়াচ্ছে পুলিশ।

সেহরির সময় ফুটপাতে থাকা দিনমজুরদের সেহরি খাওয়াচ্ছে পুলিশ। -ফরিদপুর টাইমস।

হারুন আনসারী, ফরিদপুর টাইমস:

ফরিদপুরে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বিক্রির জন্য আসা দিনমুজরদের সেহরির ব্যবস্থা করেছে জেলা পুলিশ। নিজেদের বেতনের টাকায় বাজার করে মধ্যরাতে খাবার নিয়ে এসব দিনমজুরদের কাছে হাজির হন পুলিশ সদস্যরা।

তাদের এই মানবিক সেবার কারণে এবার রোজা রাখতে পারছেন দুস্থ মানুষগুলো।

করোনাভাইরাসের কারণে বর্তমানে বন্ধ রয়েছে হোটেল-রেস্তোরা। নিজেরা রান্না করে খাওয়ার মতো ব্যবস্থাও নেই তাদের। এ কথা জানতে পেরে ফরিদপুরের এসপি আলিমুজ্জামানের নির্দেশে তাদের জন্য এ ব্যবস্থা।

ফরিদপুর পুলিশ লাইনের আরও (রির্জাভ অফিসার) মো. আনোয়ার হোসেন জানান, শহরের গোয়ালচামট মাইক্রোস্ট্যান্ড, নতুন বাসস্ট্যান্ড ও ফমেক হাসপাতালের সামনে ফুটপাতে রাতযাপন করেন এসব দিনমজুর। এদের বাড়ি দেশের উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলায়। কৃষি ও গৃহস্থালির নানা কাজে দিনভিত্তিতে শ্রম বিক্রি করতে এরা প্রতিবছরই ফরিদপুরে আসে। এবার করোনার কারণে কাজকর্মসহ খাবার সঙ্কট পোহাচ্ছেন তারা।

তিনি বলেন, কয়েকদিন ধরে সেহেরির সময় পুলিশের পক্ষ থেকে তাদের মাঝে রান্না করা খাবার দিয়ে আসা হচ্ছে। তাদের সেহেরি খাইয়ে তারপরই আমরা সেখান থেকে যাই। এসব দিনমজুরেরা রোজা রাখছেন একথা জানতে পেরে স্যার আমাদের নির্দেশ দিয়েছেন তাদেরকে সেহেরি খাওয়ানোর ব্যবস্থা করতে। তারপর গত ২৮ এপ্রিল থেকে প্রতিরাতেই পুলিশ সদস্যরা এ কাজ করছি। পুরো রমজান মাসেই আমরা তাদেরকে এভাবে সেহেরি খাওয়ানোর আশা রয়েছে।

ফরিদপুরের অতিরিক্ত এসপি (ডিএসবি) মো. সাইফুজ্জামান বলেন, কয়েকদিন আগে বগুড়ার জয়পুর এলাকার একজন দিনমজুর জানান যে তারা সেহেরির সময় খাবারের কষ্ট করছেন। বিষয়টি জানতে পেরে তৎক্ষণিক তিনি বিষয়টি খোঁজ-খবর নেয়ার জন্য রিজার্ভ অফিসারকে দায়িত্ব দেন।

তিনি বলেন, আমরা তাদের জন্য প্রথমে দু’টি বস্তায় খাদ্য সহায়তা নিয়ে গেলে তারা জানায় যে তাদের রান্না করার ব্যবস্থা এমনকি খাবারের থালাও নেই। তারপর থেকেই এভাবে তাদের জন্য রান্না করে খাবার দিয়ে আসা হচ্ছে। পুলিশ সদস্যরা তাদের খাইয়ে তারপর সেখান থেকে ফিরেন।

মো. সাইফুজ্জামান বলেন, দুস্থদের মানবিক সহায়তা করার জন্য আমাদের কাছে সরকারি বরাদ্দ আসে না। তারপরও প্রতিদিন অনেক অসহায় মানুষ সহায়তার জন্য আমাদের অফিসে আসেন। আমরা নিজেদের বেতন থেকে অর্থ সংগ্রহ করে তাদের জন্য কিছু করার চেষ্টা করছি। এর আগে ৭০০ মানুষকে আমরা মানবিক সহায়তা দিয়েছি। যদিও ব্যাপক পরিসরে আমরা তাদের সহায়তা করতে পারছি না।

দুস্থদের মাঝে মানবিক সহায়তায় এগিয়ে আসার পাশাপাশি করোনাভাইরাসের সংক্রমণের ঝুঁকির ব্যাপারে জনগণকে সচেতন করতে ফরিদপুরে জেলা পুলিশ এর আগে মোড়ে মোড়ে উদ্বুদ্ধকরণ সংগীত পরিবেশনের পাশাপাশি বিভিন্ন সড়কে করোনাভাইরাসের ছবি সম্বলিত আল্পনা আঁকে। পুলিশের এসব মানবিক ও ব্যতিক্রমী কর্মকাণ্ডের ব্যাপক প্রশংসা করেন সাধারণ জনগণ। তাদের মাঝে এসব কর্মকাণ্ড ব্যাপক সাড়া ফেলে। 

Please follow and like us
error0
Tweet 20
fb-share-icon20