September 25, 2020

করোনা সচেতনতায় পুলিশের হাতে শিল্পীর তুলি

শহরের জনতা ব্যাংকের মোড়ে ফরিদপুরের পুলিশ বিভাগের সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাশেদুল ইসলাম তুলি হাতে আঁকছেন এই করোনা সচেতনতার আল্পনা। ছবি- ফরিদপুর টাইমস।

শহরের জনতা ব্যাংকের মোড়ে ফরিদপুরের পুলিশ বিভাগের সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাশেদুল ইসলাম তুলি হাতে আঁকছেন এই করোনা সচেতনতার আল্পনা। ছবি- ফরিদপুর টাইমস।

বিশেষ সংবাদদাতা, ফরিদপুর টাইমস:

সারাবিশ্ব কাঁপিয়ে দেশেও এখন চলছে করোনা সংক্রমণের মারাত্মক ঝুঁকি। আর এই সংক্রমণ প্রতিরোধে এখন সবচেয়ে কার্যকরী হচ্ছে ঘরে থাকা। এ লক্ষ্যে ফরিদপুরে শুরু থেকেই নানাবিধ কাজ করছে ফরিদপুরের পুলিশ।

এবার মানুষ যাতে নিদারুণ প্রয়োজন ছাড়া ঘর হতে বের হয়ে করোনা সংক্রমনের ঝুঁকি না বাড়ায় সেজন্য ব্যতিক্রমী উদ্যোগ হাতে নিয়েছে ফরিদপুরের পুলিশ বিভাগ। আজ রোববার সন্ধা হতে শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়কের তারা করোনা সম্বলিত আল্পনা এঁকে জনগণকে সচেতন করার উদ্যোগ নিয়েছে।

ফরিদপুরের পুলিশ সুপার আলিমুজ্জামান (পিপিএম সেবা) বলেন, মানুষের মাঝে করোনা ভাইরাসের ব্যাপারে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে আমাদের এই ব্যতিক্রমী আয়োজন যাতে মানুষের মনে দাগ কাটে। করোনা আক্রান্ত হলে শুধু একজন মাত্র আক্রান্ত হবেন না বরং তার সাথে তার পরিবারও বাদ যাবে না ঝুঁকি থেকে। এজন্য সকলেরই উচিত এই সময়ে ঘরেই থাকা।

তিনি বলেন, সরকার সকলকে ঘরে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন। আমরা সরকারের বাইরে না। যাতে মানুষ সরকারের নির্দেশনা মেনে ঘরে থাকতে উদ্বুদ্ধ হয় সেজন্য আমরা গুরুত্বপূর্ণ সড়কে এভাবে করোনা ভাইরাস সম্বলিত আল্পনা এঁকে জনগণকে সচেতন করছি।
ফরিদপুরের পুলিশ বিভাগের সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাশেদুল ইসলাম নিজেই তুলি হাতে বিভিন্নস্থানে আঁকছেন এই আল্পনা। রবিবার রাতে তাকে দেখা গেলো শহরের জনতা ব্যাংকের মোড়ে আল্পনা আঁকতে।

ফরিদপুরের কোতয়ালী থানার ওসি মোরশেদ আলম বলেন, শহরের থানার মোড়, জনতা ব্যাংকের মোড়, ভাঙ্গা রাস্তার মোড় ও পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে প্রথম দিনে এ আল্পনা আঁকা হয়েছে। আরো বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে এভাবে আল্পনা আঁকা হবে। করোনা সংক্রমণ রোধে ফরিদপুরের পুলিশের এই এই ব্যতিক্রমী উদ্যোগ জনগণকে ঘরে থাকতে উদ্বুদ্ধ করবে বলে মনে করেন তিনি।

প্রসঙ্গত, দেশে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকির শুরু থেকেই ফরিদপুরে পুলিশ বিভাগের উদ্যোগে সাধারণ জনগণকে সচেতন করতে গত মাসাধিককালযাবত মাঠ পর্যায়ে চলছে প্রচার প্রচারণা। জনসচেতনদার লক্ষ্যে তারা প্রচারপত্র বিলি ছাড়াও মাস্ক, সাবান ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিলি করছেন। খাদ্য সংকটে থাকা অনেক অসহায় পরিবারের খবর জানতে পেরে পুলিশ সদ্যস্যরা নিজ হাতে তাদের বাড়িতে পৌছে দিয়েছেন খাবার।

Please follow and like us
error0
Tweet 20
fb-share-icon20