September 24, 2020

সৌদি প্রবাসী মাকে ফিরিয়ে আনতে সন্তানের আকুতি

নিজস্ব সংবাদদাতা, ফরিদপুর টাইমসঃ
সংসারে সচ্ছলতা আনতে সৌদি আরবে গিয়েছিলেন ফরিদপুর শহরের চাঁনমারী এলাকার বাসিন্দা গোলাপী বেগম (৪৮)। সেখানে গিয়ে রিয়াদে একটি বাড়িতে নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন তার ছেলে মো. হাসান শেখ। এ অবস্থায় তাকে ফিরিয়ে আনার জন্য সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কাছে সাহায্য চান তিনি।

বৃহস্পতিবার (৯ জানুয়ারি) বেলা ১১টার দিকে ফরিদপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানান হাসান।

লিখিত বক্তব্যে মো. হাসান শেখ জানান, গত অক্টোবর মাসে এমএজেএকে ট্রাভেলসের ফরিদপুর প্রতিনিধি ফরিদপুর সদরের কৈজুরি ইউনিয়নের তাম্বুলখানা এলাকার বাসিন্দা মো. ইমদাদুল হক মিলনের মাধ্যমে তার মা গৃহকর্মী ভিসায় সৌদি আরবে যান। গত সোমবার তার মা সৌদি আরব থেকে মোবাইল ফোনে ভিডিও কলের মাধ্যমে তার ওপর নির্যাতনের বিবরণ দিয়ে অনতিবিলম্বে তাকে উদ্ধারের কাতর আকুতি জানান।

হাসান শেখ জানান, তার মা মনোদৈহিক নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন। তাকে ঘরে আটকে রেখে মারধর করা হচ্ছে। খেতেও দিচ্ছে না সৌদি মালিক ও তাদের লোকজন। এ অবস্থায় গোলাপী বেগমকে দেশে ফিরিয়ে আনার এবং এ নির্যাতনের ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের বিচারের আওতায় আনার দাবি জানান হাসান।

সংবাদ সম্মেলনে গোলাপী বেগমের স্বামী আবু শেখ (৫৫), মেয়ে স্মৃতি আক্তার এবং ননদ নাজমা বেগম (৩৬) উপস্থিত ছিলেন।

এ ব্যাপারে এমএজেএকে ট্রাভেলস এজেন্সির ফরিদপুর প্রতিনিধি ইমদাদুল হকের দুটি মুঠোফোন নম্বরে একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি। খুদে বার্তা দিয়েও তার সঙ্গে কথা বলা যায়নি।

ফরিদপুর কোতয়ালী থানার এসআই বেলাল হোসেন বলেন, এ ব্যাপারে দেশে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার বিশেষ সুযোগ নেই। বিষয়টি দুই দেশের দূতাবাসের মাধ্যমে সমাধান করতে হবে। তবে থানায় অভিযোগ দেওয়া হলে আমরা সংশ্লিষ্ট রিক্রুট এজেন্টের প্রতিনিধিকে চাপ প্রয়োগ করতে পারি।

জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক ষষ্ঠীপদ রায় বলেন, গোলাপী বেগমকে দ্রুত দেশে ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নেওয়া হবে। এ সংক্রান্ত কাগজ ও ভিসার ফটোকপি আমাদের কার্যালয়ে দেওয়া হলে বাকি কাজগুলো আমরাই সেরে ফেলব।

Please follow and like us
error0
Tweet 20
fb-share-icon20